Others

The Beautiful Sajek Valley

09-05-2017 07:47 AM

সাজেকঃ

সাজেক ভ্যালি বাংলাদেশের একটি বর্ধনশীল পর্যটন কেন্দ্র, যা রাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ইউনিয়নের কাসালং পর্বতমালার পাহাড়ের মধ্যবর্তী স্থানে অবস্থিত। এই উপত্যকায় সমুদ্রতল থেকে ১৮০০ ফুট উঁচুতেসাজকে উপত্যকা পাহাড়ের রানী এবং রাঙ্গামাটির ছাদ হিসাবে পরিচিত।

নামের উৎসঃ

সাজেক ভ্যালির নাম সাজেক নদী থেকে এসেছিল, যার উৎপত্তি কর্ণফুলি নদীতে সাজেক নদী বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সীমান্তের মতো কাজ করে।

অবস্থানঃ

সাজেক পার্বত্য চট্টগ্রামের উত্তরে অবস্থিত একটি ইউনিয়ন। এটি খাগড়াছড়ি থেকে ৬৭ কিমি উত্তর-পূর্ব এবং রাঙ্গামাটি শহর থেকে ৯৫ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে অবস্থিত। বাংলাদেশের সীমান্ত এবং ভারতের মিজোরাম থেকে সাজেক ৮ কিলোমিটার পূর্বে।

প্রকৃতিঃ

সাজেক উপত্যকা তার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য বিখ্যাত। সাজেক উপত্যকা পাহাড়, ঘন বন এবং ঘাস ফড়িং এবং দ্বারা ঘিরা। এই পর্বতমালার মধ্য দিয়ে অনেক ছোট নদী প্রবাহিত যার মধ্যে কাচালং এবং মাচালং উল্লেখযোগ্য। সাজেক উপত্যকায় যাওয়ার পথে এক মায়ানি সীমা ও ময়নি নদী অতিক্রম করতে হয়। সাজেকের পাহাড়ি রাস্তা উঁচু নিচু হওয়াতে একবার উপরে উঠতে হয় আবার নিজে নামতে হয়।

জাতি ও সংস্কৃতিঃ

সাজেক উপত্যকা দেশীয় জাতিগত সংখ্যালঘু। এদের মধ্যে চাকমা, মারমা, ত্রিপুরা, পঙ্কুয়া, লুশাই এবং সাগম উল্লেখযোগ্য। এখানে নারী দ্বারা অর্থনৈতিক কার্যক্রম পরিচালিতহয়। চা স্টল, খাদ্য সংমিশ্রণ এবং রাস্তা পার্শ্ব বাজারের জায়গা নারীদের দ্বারা প্রভাবিত এখানের মানুষ অতি সাধারণ, মিশুক এবং বন্ধুত্বপূর্ণ। এখানের প্রধান ফসল সবজি ও কিছু ফল যা কিনা তাদের প্রধান বাণিজ্য করার মাধ্যমতারা সম্পূর্ণভাবে বাংলা ভাষায় কথা বলতে পারে না কিন্তু তরুণ-তরুণীরা আত্মবিশ্বাসী ভাবে ইংরেজিতে কথা বলে।

পর্যটন ও ভ্রমণব্যবস্থাঃ

সাজেক দীর্ঘ সময়ের জন্য উন্নয়ন থেকে অপেক্ষাকৃ পিছিয়ে ছিল এবং সম্প্রতি এটি একটি বর্ধনশীল প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এর জন্য পর্যটন জায়গা হিসাবে আবির্ভূত। এই জায়গাটিতে পর্যটকদের জন্ন আধুনিক পর্যটক সুযোগ-সুবিধা এবং উপভোগের জন্য বেশিরভাগ জায়গা প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ঘেরাযদিও উপত্যকাটি রাঙ্গামাটি জেলায় অবস্থিত কিন্তু পর্যটকরা সাজেক আসার জন্য খাগড়াছড়ি থেকে দীঘিনালা বাজার, বাগাইহাট বাজার ও মাচালং হাট থেকে অগ্রসর হতে বেশি পছন্দ করে। সাজেক যাওয়ার জন্য প্রধান পরিবহন চান্দের গাড়ি এবং চার চাকার জীপখাগড়াছড়ি থেকে সাজেক যেতে ৫ থেকে ৬ ঘণ্টা লাগে।

সাবধানতা:
উপত্যকায় ম্যালেরিয়া উৎপাত রয়েছে। তাই
, ভ্রমণকারীদের বিশেষ বলা হচ্ছে ভ্রমনের সময় মশার সংক্রমণকারী কিছু নিয়ে যাওয়া জন্য।

মূল পোস্ট

Photo Capture: Mahadi

Device: Redmi 3s

 

2017-05-03 12:31 PM

Reply Post

mahadibd

Admin

Message